ব্লগিং এ সফল হওয়ার জন্য কিছু টিপস

বিসমিল্লাহীর রহমানির রাহীম

ব্লগিং এখন ইন্টারনেট থেকে আয়ের সবচেয়ে ভালো, দির্ঘস্থায়ী এবং নিরাপদ একটি মাধ্যম। তবে সকলেই ব্লগিং করে সফলতার মুখ দেখতে পান না বিভিন্ন কারনে। অনেকে বছরের পর বছর ব্লগিং করে যান কিন্তু অবশেষে নিরাশার যাতাকলে ব্লগিং ছেড়ে দেন। তবে একথা অনস্বীকার্য যে, “অবশ্যই ব্লগিং এমন একটি পেশা যা আপনার সারাজীবনের আয়ের উৎস হয়ে যেতে পারে।”

তবে আপনার থাকতে হবে প্রবল ইচ্ছা এবং ধৈর্য্য সাথে বিভিন্ন টিপস ও ট্রিক্স কাজে লাগাতে হবে। শিখতে হবে এসইও এবং টুকটাক কোডিং। আমি প্রায় পাঁচ বছর যাবত শখের বশে ব্লগিং করছি। তাই আমার অভিজ্ঞতা থেকে কিছু বিষয় তুলে ধরলাম। যা হয়ত বা আপনার ব্লগিং জীবনে কাজে লেগে যেতে পারে। আপনিও হয়ে উঠতে পারেন একজন সফল ব্লগার বা ওয়েব সাইট এডমিন 🙂

ব্লগিং এ সফল হওয়ার জন্য কিছু টিপস

  1. ধৈর্য্যঃ প্রথমে আপনাকে মনে রাখতে হবে যে, ভালো জিনিস সহজেই লাভ করা যায় না। গোলাপ ফুল যত সুন্দর তার কাঁটাও কিন্তু ততই ধাঁরালো। তাই যদি হঠাৎ করেই না জেনে শুনে টান দিয়ে গোলাপকে ছিড়তে যান তাহলে কিন্তু শিউর আপনি রক্তাক্ত হবেন। তাই ধৈর্য্য সহকারে আস্তে আস্তে ফুলটিকে ছিড়তে চেষ্ট করুন এবং নিজের করে নিন। তেমনি ব্লগিং এ সফল হতে হলে বেশী তাড়াহুড়ো করবেন না। আস্তে আস্তে ধৈর্য্যসহকারে কাজ করে ব্লগটিকে/সাইটটিকে একটি মানসম্পন্ন উপার্জনক্ষম করে তুলুন। খাঁটি বাংলায় একটা কথা আছে, “লাইগ্গা থাকলে, মাইগ্গা খায় না।”
  2. এসইওঃ নতুন একটি ব্লগ/সাইট খোলার আগে অল্প হলেও একটু এসইও শিখুন। এতে করে আপনি কম সময়ে অনেক লাভবা হতে পারবেন। কারও কাছে গিয়ে শিখতে হবে না। আপনি শুধুমাত্র 300/-টাকা দিয়ে অনলাইন থেকেই এসইও এর ডিভিডি বা ভিডিও টিউটোরিয়াল কিনে আনতে পারেন। অর্থাৎ ঘরে বসেই এসইও এর উপর প্রাথমিক আইডিয়া নিন।
  3. ব্লগের বিষয় নির্বাচনঃ এবার এসইও এর উপর প্রাথমিক আইডিয়া শেষ হলে একটি বিষয় নির্বাচন করুন। যে বিষয়ের উপর আপনি নিয়মিত লেখতে পারবেন এবং যে বিষয়টি নেটে খুবই জনপ্রিয় বা প্রয়োজনীয় বা সকলেই গুগলে ঐ বিষয়টি সম্পর্কে সার্চ করে।
  4. ডোমেইন ক্রয় বা ব্লগ নেম নির্বাচনঃ এখন বিষয় নির্বাচন হলে ঐ বিষয় অনুসারে এসইও মোতাবেক একটি ডোমেইন ক্রয় করুন বা ফ্রি ব্লগিংয়ের জন্য ব্লগস্পট.কম ব্যবহার করতে পারেন। তবে আমার মতে প্রিমিয়াম ডোমেইন এবং হোস্টিং নেওয়াই ভালো। .com .net বা .org ডোমেইন এবং হোস্টিং কমদামে সি-প্যানেলসহ ক্রয় করতে চাইলে এই পোষ্টে কমেন্ট করুন। আমরা আপনাকে মাত্র 1350/-টাকাতেই নিজস্ব কন্ট্রোল প্যানেল সহ ডোমেইন এবং হোস্টিং দিতে পারবো।
  5. একটি থীম নির্বাচন করুনঃ ব্লগ/সাইটের থীম বা ডিজাইন নির্বাচন করা কিন্তু খুবই গুরুত্ত্বপূর্ণ একটি কাজ। তবে মোটামুটি মানের একটি থীমের জন্য প্রায় 4,000/- থেকে 10,000/- হাজার টাকা পর্যন্ত লেগে যায়। তাই আমি মনে করি আপনি একটি ভালো মানের ফ্রি থীম ইউজ করুন। পরবর্তীতে যদি ভালো আয় হয় তাহলে পছন্দমত মত একটি ভালো থীম তৈরি করিয়ে নিতে পারেন। এক্ষেত্রেও আপনি আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন কমেন্টের মাধ্যমে। আমরা কমমূল্যে-কমসময়ে আপনাকে ভালো মানের থীম দিয়ে দিবো ইনশআল্লাহ।
  6. ভাষা নির্বাচনঃ এবার নির্বাচন করুন বাংলায় ব্লগিং করবেন নাকি ইংরেজিতে ব্লগিং করবেন? তবে মনে রাখবেন বাংলায় ব্লগিং করলে কিন্তু এডসেন্স (ডলার উপার্জনেরএডমিডিয়া) পাবেন না। হয়ত কিছু দিন পরে এডসেন্স তাদের নীতি বদলালিয়ে বাংলা সাইটেও এডসেন্স দিতে পারে। তবে বাংলা সাইটে অন্য অনেক ভালো মানের এডমিডিয়া সাপোর্ট করে এমন একটি এডমিডিয়া হচ্ছে রেভিনিউহিটস.কম। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন। আপনি যদি ভালো ইংরেজি জানেন তাহলে ইংরেজিতেই ব্লগ খুলুন। আর ইংরেজিতে যদি কাঁচা হোন তাহলে অবশ্যই বাংলা ব্লগিং করুন।
  7. লেখালেখিঃ এবার আপনি লেখালেখি শুরু করে দিন এসইও অনুসরণে। কখনও কপি পেষ্ট করবেন না। কারণ কপিপেষ্ট করলে গুগলের কাছে সাইটের মান কমে যায়। আর এডসেন্সতো আজীবনেও পাবেন না।
  8. এসইওঃ এবার মিনিমান 15-20টি পোষ্ট লিখুন, প্রত্যেকটি পোষ্ট যে মিনিমান 500শব্দের হয় এর সাথে সাথে এসইও শুরু করুন যেমন, সার্চইঞ্জিন সাবমিশন এবং ব্যাকলিংক তৈরি করতে থাকুন। এরপর প্রতিদিন মিনিমাম একটি হলেও পোষ্ট করুন।
  9. সোশাল মিডিয়ায় শেয়ারঃ আপনার ব্লগটি বিভিন্ন সোশাল মিডিয়ায় যেমন ফেসবুক-টুইটার বা লিংডইনে লিংক ছড়িয়ে দিন। আপনার বন্ধুদেরকে আপনার সাইটের পরিচিতি দিন। তবে যদি আপনার সাইটটি ইংরেজি হয় আর এডসেন্স পাওয়ার ইচ্ছা থাকে তাহলে বন্ধুতো দূরে থাক বাংলাদেশের কারও সাথে কখনও আপনার সাইটের লিংক শেয়ার করবেন না। বাংলা দেশে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডারদের আইপি জনিত সমস্যা থাকে, এতে করে আপনার এডসেন্স ব্যান হয়ে যাওয়ার সম্ভবনা থাকে।
  10. এডমিডিয়া নির্বাচনঃ এবার একটি ভালো মানের এডমিডিয়া নির্বাচন করুন। ইংরেজি সাইট হলে এডসেন্স এর জন্য আবেদন করুন। তবে এডসেন্স এর জন্য আবেদন করার পূর্বে ওদের গাইডলাইন এবং শর্তাবলী জেনে নিন এখানে ক্লিক করে। যদি এডসেন্স না পান বা আপনার সাইটটি বাংলায় হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই রেভিনিউহিটস ব্যবহার করুন। প্রায় এডসেন্সের কাছাকাছিই ডলার দিয়ে থাকে। তাই এডসেন্সএর পর আমি অবশ্যই রেভিনিউহিটসকেই সুপারিশ করবো। রেভিনিউহিটস সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

এবার ধৈর্য্যসহকারে আস্তে আস্তে এগিয়ে চলুন। সাধারণ আপনার ডোমেইটি যতই পুরাতন হবে আপনার এসইও স্কোর ততই ভালে হবে। তবে প্রতিদিনই কমপক্ষে একটি পোষ্ট অবশ্যই লিখুন। আপনার ভিজিটরদেরকে বিভিন্ন ভাবে হেল্প করুন। যেমন কম্পিউটার সমস্যা জনিত সহায়তা, তাদের চাহিদামত বিভিন্ন সফটওয়্যার বা অন্যান্য ফাইল আপনার সাইটে শেয়ার করুন। এভাবে তাদের কাছ থেকে কমেন্ট নিন এবং আপনিও কমেন্টের জবাব দিন। এতে করে আপনার সাইটটি একটি কমিউনিটিতে পরিণত হবে এবং গুগলের কাছে আরোও জনপ্রিয়তা পাবে।

এগিয়ে যান আল্লাহর নামে, ইনশাআল্লাহ অবশ্যই সফল হবেন। আর টেকটোন্সতো আপনার পাশে সর্বক্ষণই আছে সমস্যা হলে কমেন্ট করুন ইনশাআল্লাহ সহযোগীতা পাবেন।

আরোও অনেক বলার ছিল। কিন্তু সময় নাই তাই সংক্ষেপেই বললাম। ভূলত্রূটি হলে ক্ষমার সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। ধন্যবাদ সকলকে। আল্লাহ হাফেজ।

মোহাম্মদ নূরুল ইসলাম রনি

#আমার সম্পর্কে তেমন কিছু বলার নেই। তবে নিজেকে মহান আল্লাহ-তায়ালার একজন নগণ্য বান্দা হিসেবে পরিচয় দিতেই ভালোবাসি। আমার একটি অন্যতম শখ হচ্ছে, বেশী থেকে বেশী প্রযুক্তিকে জানতে ও জানাতে। এর প্রয়াসেই বিভিন্ন ব্লগে পোষ্ট করে থাকি। একবার আমার ব্লগ সাবাইকে দাওয়াত- www.pchelpcarebd.blogspot.com # দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত জ্ঞান অন্বেষণ করো।----- আলহাদীস। প্রযুক্তির সূরে মেতে উঠুক, বাংলার প্রতিটি মানুষ.......

More Posts - Website

Follow Me:
Facebook

Leave a Reply